হিন্দু মহাজোট এর বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি এর শুভ উদ্বোধন করলেন সভাপতি অ্যাড.বিধান বিহারী গোস্বামী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি:-

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি এর শুভ উদ্বোধন করলেন হিন্দু মহাজোট এর কেন্দ্রীয় সভাপতি অ্যাড.বিধান বিহারী গোস্বামী।

১০ জুলাই ২০২০ রোজ শুক্রবার সকাল ১০.৩০ঘটিকায় লালবাগ শ্মশানে বিভিন্ন ধরনের বৃক্ষ রোপন করে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করাহয়।

এই কৃক্ষরোপন কর্মসূচি আগামি ১৬ জুলাই ২০২০ বৃহস্পতি বার পর্যন্ত চলবে ।তাই বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট এর সকল অঙ্গ সংগঠন সহ জেলা উপজেলা ইউনিয়ন কমিটি এর সকলকে এই বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি কে নিজ নিজ এলাকায় পালন করতে কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু মহাজোট এর সভাপতি অ্যাডঃ বিধান বিহারী গোস্বামী, বরিষ্ঠ সহ সভাপতি প্রদীপ পাল, মহাসচিব অ্যাডঃ গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক, ২৪ নং ওয়র্ড কাউন্সিলর মোকাদ্দেন হোসেন জাহিদ, ক্রীড়া সম্পাদক এস কে দাস বিজয়, সহ সম্পাদক রতন চৌহান, হিন্দু স্বেচ্ছাসেবক মহাজোট এর আহ্বায়ক শ্যামল ঘোষ, হিন্দু যুব মহাজোট এর আহ্বায়ক কিশোর বর্মন, হিন্দু ছাত্র মহাজোট এর সভাপতি সাজেন কৃষ্ণ বল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল ঘোষ,

লালবাগ থানা হিন্দু মহাজোট এর সভাপতি হরেকৃষ্ণ দাশ, সাধারন সম্পাদক সুমন দাশ,ধীরেন চন্দ্র দাস, শ্মশান এর সরকারি মোহর শ্রী কার্তীক চন্দ্র সর্মা , শ্রী রামকৃষ্ণ ,শ্রী হরি আনন্দ দাশ,রাজকাপুর ডোম, নয়ন ডোম,সোহেল লাল ডোম সহ ঢাকা মহানগর হিন্দু মহাজোট নেতৃবৃন্দ।

হিন্দু মহাজোট এর মহাসচিব অ্যাডঃ গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক বলেন দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, থানা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটির উদ্যোগে ফলজ, বনজ, পুষ্পজ ও ঔষধি বৃক্ষ রোপণ করতে হবে। কারন বৃক্ষ সুধু মানুষেরই উপকার করেনা সকল প্রানীরই উপকারে আসে এবং পরিবেশ ভাল রাখে।সকল পশুপাখি এর ফল পাতা খেয়ে জীবন ধারন করে।

হিন্দু যুব মহাজোট এর আহ্বায়ক কিশোর কুমার বর্মন বলে সকল মানুষের উচিৎ অন্তত একটি করে গাছ লাগিয়ে এই বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন করা।

হিন্দু ছাত্র মহাজোট এর সভাপতি সাজেন কৃষ্ণ বল বলেন গাছ আমাদের অক্সিজেন দেয়,পরিবেশ ভাল রাখে ।এখন সকল ছাত্র ছাত্রী তাদের নিজ নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছেন,বিভিন্ন যায়গায় পরিত্যক্ত স্থানে গাছ লাগান পরিবেশ বাচান।অপ্রয়োজনীয় কোন যায়গা যেন খালি না থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *