আগামীকাল শ্রী কৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

উজ্জ্বল রায়,নিজস্ব প্রতিবেদক নড়াইলঃ-

আগামী মঙ্গলবার ১১ অগাস্ট শুভ জন্মাষ্টমী। দেশজুড়ে মহা ধূমধামের সঙ্গে পালিত হবে এই উত্‍সব।

এদিন ধরাধামে আবির্ভূত হয়েছিলেন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ। শিশুকালের কংসের পাঠানো একের পর এক রাক্ষসকে বধ করেছিলেন তিনি।

পুরাণ অনুযায়ী, ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে জন্ম হয় শ্রীকৃষ্ণের। সেই কারণে গোটা দেশে শ্রীকৃষ্ণের জন্মতিথি হিসেবে জন্মষ্টমী ধুমধাম করে পালিত হয়।

প্রবল পরাক্রমশালী রাজা কংসের অত্যাচার থেকে সবাইকে মুক্তি দিতে কারাগারে জন্ম হয় দেবকী ও বসুদেবের অষ্টম গর্ভের সন্তান কৃষ্ণের।

কৃষ্ণই যে বড় হয়ে তাঁকে হত্যা করবেন, সেই বিষয়ে অবগত ছিলেন কংস। সেই কারণে কৃষ্ণের জন্মের আগেই দেবকী ও বসুদেবকে কারাগারে নিক্ষেপ করেন তিনি।

দেবকীর গর্ভের একের পর এক সন্তানের জন্মমাত্রই তাদের হত্যা করেন তিনি। ছোট্ট কৃষ্ণকেও নানা ভাবে হত্যার চেষ্টা করেন কংস।

একের পর রাক্ষস ও অসুরকে কৃষ্ণ বধের উদ্দেশ্যে গোকূলে পাঠান তিনি। কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হতে তাঁর পাঠানো মৃত্যুদূতদের।

আগামী ১১ অগস্ট পালিত হবে এই বছরের জন্মাষ্টমী। তার জন্য দেশজুড়েই শুরু হয়ে গিয়েছে প্রস্তুতি। এই দিন উপবাস রেখে তাঁর আবির্ভাব তিথি পালন করেন কৃষ্ণভক্তরা।

তার আগে জেনে নিন কৃষ্ণকে হত্যার জন্য কংসের পাঠানো শকটাসুরকে কী ভাবে অবহেলায় হত্যা করেছিলেন বালক কৃষ্ণ।

শ্রীকৃষ্ণের তখন মাত্র তিন মাস বয়স। মা যশোদা তাঁকে উঠোনে একটা খাটে শুইয়ে যমুনায় স্নান করতে যান। ফিরে এসে দেখেন, খাট ভাঙা এবং কৃষ্ণ সেখানে নেই।

প্রচণ্ড ভয় পেয়ে যশোদা কাঁদতে কাঁদতে ঘরে ঢুকে দেখেন ছোট্ট শ্রীকৃষ্ণ বিছানায় শুয়ে অঘোরে ঘুমোচ্ছেন। যখন যশোদা স্নান করতে গিয়েছিলেন, সেই সময় কংস কৃষ্ণকে হত্যা করতে শকটাসুর নামে এক রাক্ষকে পাঠান।

শ্রীকৃষ্ণের আসল শক্তি সম্পর্কে অবগত না থাকায় শকটাসুর ভেবেছিল যে খুব সবজেই এই শিশুকে সে হত্যা করতে পারবে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় সম্পূর্ণ অন্য চিত্র।

শিশু কৃষ্ণকে ঘুমন্ত অবস্থায় দেখে শকটাসুর তাঁকে হত্যা করতে যায়। মাত্র তিন মাস বয়সী ছোট্ট কৃষ্ণ ওই বিশাল রাক্ষসকে অবহেলায় আকাশে উঠিয়ে দেন। তারপর তাকে মাটিতে আছড়ে ফেলেন।

এই প্রচণ্ড আঘাতেই মৃত্যু হয় শকটাসুরের। তবে স্বয়ং শ্রীকৃষ্ণের হাতে মৃত্যু হওয়ায় মুক্তি পেয়ে যায় শকটাসুর।
পুরাণ মতে দ্বাপর যুগের এই তিথিতেই মানবরূপে মর্তে আবির্ভাব হয়েছিলেন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ।

এই উৎসবগুলি কৃষ্ণাষ্টমী, গোকুলাষ্টমী, অষ্টমী রোহিণী, শ্রীকৃষ্ণজয়ন্তী ইত্যাদি নামেও পরিচিত। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিশেষত বৈষ্ণবদের কাছে জন্মাষ্টমী একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *