নড়াইলের নবগংগা নদীর তীরে অবস্থিত জোড়বাংলা ও শিব মন্দির ধ্বংস প্রায়

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ-     

নড়াইল এর লোহাগড়া উপজেলায় নোয়াগ্রাম ইউনিয়নে নবগংগা নদীর তীরে অবস্থিত রায়গ্রাম নামক স্থানে একটি জোড়বাংলা মন্দিরএর ধ্বংসাবশেষ রয়েছে, এটি ভুষণার রাজা সীতারামের জোড় বাংলার অনুকরণে নির্মিত।

সীতারামের প্রধান সেনাপতি ছিলেন মেনাহাতি।মেনাহাতির কনিষ্ঠ ভ্রাতা রামশঙ্কর রায়গ্রামে একটি সুন্দর জোড় বাংলা মন্দির নির্মাণ করে নারায়ণ বিগ্রহ স্থাপন করেন এবং পাশে একটি শিবমন্দিরও নির্মাণ করেন।

জোড়বাংলা মন্দিরটি ২টি দোচালা ঘরের পাকা ছাদের সংযোগে নির্মিত হয়েছিল।মন্দিরটি বড়ই সুন্দর ছিল।এটি সীতারাম কর্তৃক নির্মিত মন্দিরের অনুরূপ।প্রত্যেক দোচালা ঘরের বাহিরের আয়তন ২৮”/২২”-১০”। মন্দিরের মাপ ১৪”-৪”/১৪”-৪” ইঞ্চি।

মন্দিরের সামনের দিকে তিনটি প্রবেশ পথ ছিল, যা অধবৃত্তাকারের খিলানের সাহায্যে নির্মিত।প্রবেশপথে পরে বারান্দা ছিল।বারান্দার পরে ভূগৃহ ছিল।

শিবমন্দিরে উৎকীর্ণ শ্লোকঃ ষষ্ঠ বেদাঙ্গ চন্দ্রমস শাকে শ্রী শংকরালয় আকারি শংকরা খ্যেন ঘোষে নাপি সুভক্ষিতঃ অর্থাৎ (ষষ্ঠ=৬. বেদ=৪, অঙ্গ =৬, চন্দ্র=১ অশংস্য বামাগতিতে ১৬৪৬ শতক বা ১৭২৪ খ্রীঃ) ১৭২৪ খ্রীষ্টাব্দে ১৬৪৬ শতাব্দীতে/১১৩১ বঙ্গাব্দে রাম শংকর কর্তৃক মন্দিরটি নির্মিত হয়েছিল।

জোড় বাংলা ও শিব মন্দির বর্তমানে ধ্বংসে পরিনত হয়েছে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *