ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রনজিত কুমার পাল (বাবু) স্টাফ রিপোর্টার:-

আজ অমর একুশে ফেব্রুয়ারি। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। রক্তস্নানের মধ্য দিয়ে ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার দিন।

সব বাধা অতিক্রম করে বাংলাকে পাথেয় করে এগিয়ে যাওয়ার শপথের দিন। বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য এদিন সালাম, বরকত, রফিকসহ অনেকে আত্মাহুতি দিয়েছিলেন। এজন্যই দিনটি একই সঙ্গে গৌরবের ও শোকের।

জাতি আজ শ্রদ্ধাভরে সেইসব শহীদদের স্মরণ করছে। দিবসটি শুধু বাঙালির নয়, পৃথিবীর সব ভাষাভাষী মানুষের। পৃথিবীর কয়েক হাজার ভাষাভাষী মানুষও দিনটি শ্রদ্ধাভরে পালন করছেন।

বিনম্র শ্রদ্ধা, যথাযথ মর্যাদা ও পূর্ণ ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে জাতি ভাষাশহীদদের স্মরণের মাধ্যমে ‘মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন শুরু করেছে।

ধামরাই পৌরসভার মোকামটোলাস্হ ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের কার্যালয় থেকে প্রভাতফেরির মাধ্যমে ধামরাই সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ এর শহীদ মিনারের মূল বেদিতে পুষ্প স্তবক অর্পণ করেন ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ (কার্যকরি কমিটির-) সহ-সভাপতি রনজিত কুমার পাল (দৈনিক বাংলাদেশ ও দৈনিক তৃতীয় মাত্রা), যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুদ রানা (দৈনিক আলোকিত প্রতিদিন),

প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম (দৈনিক দেশের কন্ঠ), ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সোহেল রানা (দৈনিক ডেল্টা টাইম), কার্যকরি সদস্য মোঃ কাজী মিজানুর রহমান মিজান (দৈনিক লাখো কন্ঠ), কার্যকরি সদস্য মোঃ সাদিকুল ইসলাম খান সাদিক (দৈনিক ভোরের সময়), ইয়াছিন হোসেন (দৈনিক তৃতীয় মাত্রা), সজিব, আমিন ও অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

এ’সময় ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সাংবাদিক রনজিত কুমার পাল (বাবু) বলেন, বায়ান্নর সেই সোনাঝরা রোদ্দুরে রক্তস্নাত মোদের গৌরব মোদের আশাকে যথাযথ প্রকাশে একুশ চিরদিনই আমাদের শানিত চেতনা।

একুশ আমাদের বাঁচতে শেখায়, লড়াই করে অধিকার আদায় করতে শেখায়। একুশ বাঙালি জাতির গর্ব ও অহংকার। ভাষাসংগ্রামের রক্তস্নাত সেই বিস্ফোরণ শুধু বাঙালির মায়ের ভাষাকেই শৃঙ্খলমুক্ত করেনি; বাঙালির স্বাধিকার, স্বাধীনতা, সব ধরনের বৈষম্য দূর করার সংগ্রাম ও অনুপ্রেরণার উৎস।

তিনি আরোও বলেন, ‘আসুন দলমত নির্বিশেষে একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে কাজ করি এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে সমুন্নত রাখি। সবাই মিলে একটি অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলি। প্রতিষ্ঠা করি জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *