আজ শুভ মহালয়া

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসবের পুণ্যলগ্ন, শুভ মহালয়া আজ। এ দিন থেকেই শুরু দেবীপক্ষের। শ্রীশ্রী চন্ডীপাঠের মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গার আবাহনই মহালয়া হিসেবে পরিচিত। আর এই ‘চন্ডী’তেই আছে দেবী দুর্গার সৃষ্টির বর্ণনা এবং দেবীর প্রশস্তি। শারদীয় দুর্গাপূজার একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হলো এই মহালয়া। পুরাণমতে, এদিন দেবী দুর্গার আবির্ভাব ঘটে। এ দিন থেকেই দুর্গাপূজার দিন গণনা শুরু হয়। মহালয়া মানেই আর ৬ দিনের প্রতীক্ষা মায়ের পূজার। আর এই দিনেই দেবীর চক্ষুদান করা হয়।

আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ষষ্ঠীপূজার মাধ্যমে দুর্গাপূজা শুরু হলেও মূলত আজ থেকেই পূজার্থীরা দুর্গাপূজার আগমণধ্বনি শুনতে পাবেন। দুর্গাপূজার এই সূচনার দিনটি সারা দেশে বেশ আড়ম্বরের সঙ্গে উদযাপিত হবে। আজ ভোরে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য মন্দিরেও এ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কাছে মহিষাসুরমর্দিনী দেবী দুর্গা সমস্ত অশুভ শক্তি বিনাশের প্রতীক রূপে পূজিত। মহামায়া অসীম শক্তির উৎস। পুরাণ মতে, মহালয়ার দিনে, দেবী দুর্গা মহিষাসুর বধের দায়িত্ব পান। শিবের বর অনুযায়ী কোন মানুষ বা দেবতা কখনও মহিষাসুরকে হত্যা করতে পারবে না। ফলত অসীম ক্ষমতাশালী মহিষাসুর দেবতাদের স্বর্গ থেকে বিতারিত করে এবং বিশ্ব ব্রহ্মান্ডের অধীশ্বর হতে চায়।

ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও শিব ত্রয়ী সন্মিলিত ভাবে “মহামায়া” এর রূপে অমোঘ নারীশক্তি সৃষ্টি করলেন এবং দেবতাদের দশটি অস্ত্রে সুসজ্জিত সিংহবাহিনী দেবী দুর্গা নয় দিনব্যাপী যুদ্ধে মহিষাসুরকে পরাজিত ও হত্যা করেন ।
মহালয়ার আর একটি দিক হচ্ছে এই মহালয়া তিথিতে যারা পিতৃ-মাতৃহীন তারা তাদের পূর্বপূরূষের স্মরণ করে তাদের আত্মার শান্তি কামনা করে অঞ্জলি প্রদান করেন। সনাতন ধর্ম অনুসারে এই দিনে প্রয়াত আত্মাদের মর্ত্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়। প্রয়াত আত্মার যে সমাবেশ হয় তাকে মহালয়া বলা হয়। মহালয় থেকে মহালয়া। পিতৃপক্ষের ও শেষদিন এটি ।

পূজার সময় সূচি:-

১১ আশ্বিন, ১৪২৬, শনিবার ২৮/৯/২০১৯ শ্রীশ্রীদুর্গা দেবীর অমাবস্যা বিহিত পূজা, অমাবস্যার ব্রতোপবাস ও নিশিপালন, মহালয়া পার্বণ শ্রাদ্ধম্, শ্রাদ্ধানন্তর ষোড়শ পিণ্ডানম্, অপরপক্ষীয় শ্রাদ্ধ ও তর্পণ সমাপন, দেবীর ধূননযাত্রা সমাপন। তর্পণ লয়বা (মনিপুর)।
১৬ আশ্বিন, ১৪২৬, বৃহস্পতিবার ৩/১০/২০১৯ ষট্ পঞ্চমী ব্রত। ললিতা পঞ্চমী ব্রত। শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর পঞ্চমী বিহিত পূজা। সায়ংকালে দেবীর বোধন।
১৭ আশ্বিন, ১৪২৬, শুক্রবার ৪/১০/২০১৯ শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গা ষষ্ঠী। শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ এবং ষষ্ঠী বিহিত পূজা প্রশস্তা (তৃতীয় কল্প)। সায়ংকালে শ্রীশ্রীদুর্গাদেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস।
১৮ আশ্বিন, ১৪২৬, শনিবার ৫/১০/২০১৯ শ্রীশ্রীদুর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ স্থাপন ও সপ্তমাদি কল্পারম্ভ (চতুর্থ কল্প) এবং সপ্তমীবিহিত পূজা, অর্ধরাত্র বিহিত পূজা, জৈনদের ওলিপর্বারম্ভ।
১৯ আশ্বিন, ১৪২৬, রবিবার ৬/১০/২০১৯ বীরাষ্টমী, মহাষ্টমীর ব্রতোপবাস, কালিকা দেব্যাবির্ভাব, মহিষমর্দিনী দেব্যাবির্ভাব, মহারাত্রি নিমিত্তানুষ্ঠান, শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর অষ্টম্যাদি কল্পারম্ভ (পঞ্চম কল্প) ও অষ্টমী বিহিত পূজা ও কেবল মহাষ্টমী কল্পারম্ভ প্রশস্তা (ষষ্ঠ কল্প), কুমারী পূজা, সন্ধিপূজা।
২০ আশ্বিন, ১৪২৬, সোমবার ৭/১০/২০১৯ শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর নবমী বিহিত পূজা এবং কেবল মহানবমী কল্পারম্ভ (সপ্তম কল্প), নবরাত্রি ব্রত সমাপ্ত, মন্বন্তরা স্নানদানাদি।
২১আশ্বিন ১৪২৬, মঙ্গলবার ৮/১০/২০১৯ শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর দশমী বিহিত পূজা ও বিসর্জন, বিজয়দশমী, বিসর্জনান্তে শ্রীশ্রীঅপরাজিতা পূজা, শ্রীশ্রীহনুমানজীর পতাকা পূজন, দশেরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Top