নেপালের স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুরের উপর ধর্ষণের অভিযোগ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নেপালের স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুর মহারা পদত্যাগ করেছেন। সংসদ সচিবালয়ের এক নারী সহকর্মীর তোলা ধর্ষণের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি আজ মঙ্গলবার পদত্যাগ করেন। ভারতীয় টেলিভিশন এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

নেপালে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির জ্যেষ্ঠ সদস্য স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুর মহারা বলেন, তিনি পদত্যাগের মাধ্যমে গণমাধ্যমে খবরে প্রকাশিত তার বিরুদ্ধে ওঠা সহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগের নিরপেক্ষ ও স্বাধীন তদন্তের স্বার্থে তিনি পদত্যাগ করলেন। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তা কার্যকর থাকবে।

নেপালে কয়েক যুগ ধরে চলা মাওবাদী বিদ্রোহীদের একজন প্রথম সারির নেতা ছিলেন সদ্য পদত্যাগ করা স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুর। তিনি এর আগে দেশটির সহকারী প্রধানমন্ত্রীসহ বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল হামরাকুরা ডট কমে প্রকাশিত একটি সাক্ষাতকারে স্পিকারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলা ওই নারী বলেন, তিনি একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন। গত রোববার রাতে স্পিতার কৃষ্ণ বাহাদুর মাতাল অবস্থায় তার বাড়িতে এসে তাকে মদ খাইয়ে ধর্ষণ করেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি জানতাম না এটা এমনভাবে হবে। তিনি আমাকে জোর করে…। তারপর আমি যখন পুলিশ ডাকার কথা বলে তখন তিনি আমাকে ফেলে রেখে চলে যান।’ অভিযুক্ত নারী তার হাত এবং শরীরের ক্ষত গণমাধ্যমকে দেখিয়েছেন।

গত রোববার রাতে ওই নারীর কাছ থেকে ফোন আসার সত্যতা নিশ্চিত করেছে পুলিশ। মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র শ্যাম লাল গওয়ালি বলেন, ‘আমরা আমাদের তদন্তের কাজ সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি এবং তার বাড়ি থেকে ঘটনার প্রমাণ সংগ্রহ করছি। তবে তিনি (নারী) এখনো মামলা করেননি।’

অভিযুক্ত নারীর বাড়ি থেকে এক বোতল মদ (হুইস্কি) এবং একজোড়া চশমা প্রমাণ হিসেবে উদ্ধার করা হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে সেগুলো স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুরের। মঙ্গলবার থেকে স্পিকারকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হওয়ার তিনি পদত্যাগ করলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Top